মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০১:২১ পূর্বাহ্ন

Notice :

জননেতা জগলুল সুনামগঞ্জবাসীর হৃদয়ে চির অম্লান হয়ে থাকবেন

স্টাফ রিপোর্টার :
সুনামগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র জননেতা আয়ূব বখত জগলুলের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার বিকেলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করে আয়ূব বখত জগলুল স্মৃতি পরিষদ। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র নাদের বখত।
জেলা ছাত্রলীগ নেতা শাহ জুনায়েদ আহমদ সৃজন ও প্রগতি সংগঠনের মুখপাত্র সাদিকুর রহমান রুবেলের যৌথ সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুট, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান করুণাসিন্ধু চৌধুরী বাবুল, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. হায়দার চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুর রহমান সিরাজ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার হাজী নূরুল মোমেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাড. নজরুল ইসলাম শেফু, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আক্তারুজ্জামান সেলিম, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা জগৎজ্যোতি পাবলিক লাইব্রেরির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সালেহ আহমদ, শিক্ষাবিদ যোগেশ্বর দাস, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য রেজাউল করিম নিক্কু, সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজের সাবেক ভিপি অ্যাড. মণীষ কান্তি দে মিন্টু, হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শামছুল আবেদীন, জেলা মহিলা পরিষদের সভাপতি গৌরী ভট্টাচার্য্য, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিমান রায়, সুনামগঞ্জ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আহমদ নূর, মহিলা কাউন্সিলর সামিনা চৌধুরী মনি প্রমুখ।
আলোচনা সভায় সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল হুদা মুকুট বলেন, আমি আয়ূব বখত জগলুলের জন্যই আজ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হয়েছি। সে যদি আমার পাশে সেদিন না থাকতো তাহলে নির্বাচনে জয়ী হওয়া আমরা জন্য কঠিন ছিল। কিন্তু জগলুল নিজে উদ্যোগ নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় সভা-সমাবেশ করে। আমি তার জন্য কিছু করতে পারলে অনেক খুশি হব। আমি চাইবো পৌরসভার বর্তমান মেয়র নাদের বখতসহ যারা রয়েছেন তারা সবাই মিলে আলোচনা করে আমাকে জানান কিংবা আমরা আলোচনায় করে আয়ূব বখত জগলুলের স্মৃতি ধরে রাখার জন্য কিছু করে যেতে চাই।
তিনি আরও বলেন, আয়ূব বখত জগলুল একজন সাহসী নেতা ছিলেন। আমি দেখেছি তিনি যখন ছাত্রলীগ করতো সে মেধাবী ছেলেদের সভাপতি ও সম্পাদকের পদ দিতো। আয়ূব বখত জগলুলকে সুনামগঞ্জবাসী চিরদিন মনে রাখবে। তিনি সুনামগঞ্জবাসীর হৃদয়ে চিরঅম্লান হয়ে থাকবেন।
সভায় বক্তারা বলেন, আয়ূব বখত জগলুল সুনামগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নের রূপকার। তার মধ্য দিয়ে সুনামগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নের যাত্রা শুরু করে। আয়ূব বখত জগলুল গণমানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। কখনো অন্যায়ের সাথে আপস করেননি।
বক্তারা আরও বলেন, আয়ূব বখত জগলুল সবসময় সুনামগঞ্জবাসীর কথা ভাবতেন। কখনো নিজের জন্য কিছু চাইতেন না। মানুষের কল্যাণেই তিনি তার জীবন উৎসর্গ করেছিলেন। এরশাদবিরোধী আন্দোলনের সময় আয়ূব বখত জগলুল ছিলেন তরুণ। সেই সময় তিনি প্রতিটি আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি বেঁচে থাকলেও হয়তো সুনামগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়ন আরও দ্রুত গতিতে হতো। এখন আয়ূব বখত জগলুলের ছোটভাই নাদের বখত রয়েছেন। তিনি তার ভাইয়ের সুনামগঞ্জ পৌরসভাকে নিয়ে দেখে যাওয়া স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী