সোমবার, ০৮ মার্চ ২০২১, ১১:৫৬ অপরাহ্ন

Notice :

অর্থনৈতিক খাত অবাধ্য সন্তানের মতো : এমপি মিসবাহ

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
বাংলাদেশের অর্থনীতি অবাধ্য সন্তানের মতো বলে অভিযোগ করেছেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান। দেশের অর্থনৈতিক খাতের অব্যবস্থাপনার সমালোচনা করে এই সংসদ সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক কাজ করছেন। কিন্তু আমাদের অর্থনৈতিক সেক্টর পিতামাতার বখে যাওয়া সন্তানের মতো। অবাধ্য সন্তানের মতো। সরল পথে আনা যাচ্ছে না। হাইকোর্টও বলছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা ঠগবাজ-প্রতারকদের আশ্রয় দিচ্ছেন। এক মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়ে এই পর্যবেক্ষণ এসেছে।
জাতীয় সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) তিনি এসব কথা বলেন।
পিপলস লিজিং কো¤পানিতে বিনিয়োগকারীদের জীবন দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে মন্তব্য করে পীর ফজলুর রহমান বলেন, বিদেশে টাকা পাচার হচ্ছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন সরকারি কর্মকর্তারা বিদেশে টাকা পাচার করছেন। এটা দেখা দরকার। ভাগ্যবান পিকে হালদারের ১৫ বান্ধবী। ৮৬৭ কোটি টাকা বান্ধবীদের অ্যাকাউন্টে। আর উনি সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা নিয়ে পলাতক। এই যে পিপলস লিজিংয়ে মানুষ টাকা রেখেছিলেন সুখের আশায়। আমার এক বন্ধু বলেছেন, তিনি সর্বহারা। করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার টাকা নেই। কিন্তু বান্ধবীরা সুখে আছেন। শুধু পি কে হালদার কেন, তার পেছনে যারা আছেন তাদের ধরতে হবে।
সোমবার (২৫ জানুয়ারি) সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানার বক্তব্যের সমালোচনা করে পীর ফজলুর রহমান বলেন, গতকাল বিএনপি দলীয় এক সংসদ সদস্য বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ খাদ্য পাচ্ছে না। আমি বিনয়ের সঙ্গে বলতে চাই, কোথা থেকে তথ্য পেলেন জানি না। এসব জানার জন্য তথ্য লাগে না। মানুষের সঙ্গে মিশলেই বোঝা যায়। বাংলাদেশে কেউ অনাহারে নেই। কোথা থেকে পেলেন এই তথ্য? মানুষের কাছে উনি যান কিনা জানি না। উনার কথা মিথ্যা।
বিএনপির সমালোচনা করে তিনি আরও বলেন, প্রথমে বলেছে ভ্যাকসিন আসবে না। এখন যখন আসলো, আসার পর বলছে তারা নেবে না। আওয়ামী লীগকে নিতে হবে। সংকটের সময় তারা বলে-পেহলে আপ। ১/১১ এর সময়ও করেছে। এখনও করছে। টিকা নিয়ে রাজনীতির সুযোগ নেই। ক্রান্তিকালে রাজনীতি হয় না। মানুষের জীবন নিয়ে রাজনীতি হয় না।
জাতীয় পার্টির রওশন আরা মান্নান বলেন, পি কে হালদারকে বিদেশ থেকে ধরে এনে কঠোর শাস্তি দেওয়া হোক। না হলে ভবিষ্যতে উদাহরণ হয়ে থাকবে। অনেকে টাকা পয়সা নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যাবে। এ ধরনের আরও কত পি কে হালদার আছে দুদককে তা খুঁজে বের করতে হবে। অনেক মেয়ে পি কে হালদারের বান্ধবী হতে না পেরে এখন আফসোস করছে। হলমার্কের এমডি কারাগারে বান্ধবীর সঙ্গে সময় কাটাচ্ছে। এগুলো বন্ধ করতে হবে। টাকা দিয়ে এগুলো ব্যবস্থা করেছে। এই টাকাগুলো নিজেদের হলেও না হয় কথা ছিল। এসব টাকা ব্যাংকের, তারা বান্ধবীদের পেছনে খরচ করছে। এই দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে।
আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য এ বি তাজুল ইসলাম বিএনপির রাজরীতির সমালোচনা করে বলেন, আমাদের সিনিয়র সংসদ সদস্য সেলিম ভাই একান্ত আলাপে বলেছিলেন জিয়াকে হত্যা করলে না কেন। তোমার পক্ষে এটা সম্ভব ছিল। আমি ছিলাম তখন ক্যাপ্টেন। তাই আমার পক্ষে এটা সম্ভব ছিল না।
বিএনপি উন্মাদের মতো আচরণ করছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাইফুজ্জামান বলেন, বিএনপি জামায়াতের ইতিহাসই মিথ্যায় ভরা। পৌর নির্বাচনসহ বিভিন্ন নির্বাচনে দেখছি জনগণ তাদের ভোট দিতে চায় না। এ কারণে বিএনপি উন্মাদের মতো আচরণ করছে।
আলোচনায় আরও অংশ নেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান, আওয়ামী লীগের সুবিদ আলী ভুইয়া, মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, আব্দুস সালাম মুর্শেদী প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী