রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন

Notice :
«» দোহালিয়ায় প্রগতি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে কমিটি গঠনের উদ্যোগ «» ৪৯ শিশুকে সংশোধনের সুযোগ দিলেন আদালত «» হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ : অর্থ ছাড় হলেও কাজের খবর নেই «» মেগা প্রকল্পের কাজ শেষ হলে আমূল পরিবর্তন ঘটবে : পরিকল্পনামন্ত্রী «» দায়িত্ববোধ নিয়ে কাজ করতে হবে : জেলা প্রশাসক «» জীবিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে যাবে প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা চিঠি «» ফতেপুর ইউপি নির্বাচন : আ.লীগের মনোনয়ন চান সাবেক চেয়ারম্যান প্রবোধ রায় «» দোয়ারায় সেচ প্রকল্পের উদ্বোধন : সুবিধা পাবে সহস্রাধিক কৃষক «» এমপি রতন ও চেয়ারম্যান রোকনকে নিয়ে অপপ্রচারের প্রতিবাদে মানববন্ধন «» ৭৬ প্রতিবন্ধী পেলেন রেডক্রিসেন্টের আর্থিক সহায়তা

জগন্নাথপুরে জমে উঠছে নির্বাচনী লড়াই

মো. শাহজাহান মিয়া ::
জগন্নাথপুর পৌরসভার নির্বাচন আগামী ১৬ জানুয়ারি। নির্বাচনের আর মাত্র কয়েক দিন বাকি রয়েছে। নির্বাচনের সময় যতো ঘনিয়ে আসছে, ততোই বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ। সরগরম হয়ে উঠেছে পৌর শহর। নিজেদের বিজয় নিশ্চিতের লক্ষ্যে প্রার্থীরা মরিয়া হয়ে উঠেছেন। সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন নির্বাচনী মাঠে। দিনরাত চষে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। চাইছেন ভোট ও দোয়া। দিচ্ছেন উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি। প্রার্থীদের সাথে তাদের কর্মী-সমর্থকরাও বসে নেই। দেশ ও বিদেশ থেকে চলছে গণসংযোগ ও প্রচারণা। পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে গেছে পৌর শহর। সব মিলিয়ে শেষ সময়ে জোরেশোরে বইছে নির্বাচনী আমেজ।
এদিকে-কে হচ্ছেন আগামী পৌর পিতা ও ওয়ার্ডের অভিভাবক – এ নিয়ে পৌরবাসীর মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ভোটাররাও এবার অনেক সচেতন। তারা বুঝে-শোনে তাদের পছন্দের যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। কাকে প্রদান করবেন মূল্যবান ভোট – এ নিয়ে ভোটারদের মধ্যে চলছে বিশ্লেষণ। অনেকের অভিযোগ, নির্বাচনে টাকার খেলাও থাকবে। প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুরে নির্বাচন এলেই কমবেশি টাকার খেলা শুরু হয়। নির্বাচনে দলীয় প্রভাব, টাকার জোর, ব্যক্তি ইমেজ, গোষ্ঠীগত ক্ষমতার দাপট ও আঞ্চলিকতার প্রভাব পড়ে থাকে। বৃহস্পতিবার ভোটারদের সাথে আলাপকালে এমন তথ্য উঠে এসেছে।
৪নং জগন্নাথপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদ ১৯৯৯ইং সালে পৌরসভায় উন্নীত হয়। জগন্নাথপুর পৌরসভার পৌর প্রশাসক ছিলেন তৎকালীন ইউপি চেয়ারম্যান মো. মুকিত মিয়া ও প্রথম পৌর চেয়ারম্যান ছিলেন হারুনুর রশীদ হিরন মিয়া এবং সর্বশেষ পৌর মেয়র ছিলেন প্রয়াত হাজী আবদুল মনাফ। এর মধ্যে পৌর চেয়ারম্যান ছিলেন মিজানুর রশীদ ভূইয়া ও পৌর মেয়র ছিলেন আক্তারুজ্জামান আক্তার। বর্তমানে দ্বিতীয় বারের মতো পৌর মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মিজানুর রশীদ ভূইয়া। এবারো নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন মিজানুর রশীদ ভূইয়া। এবার তিনি নির্বাচিত হলে তৃতীয় বারের মতো ও আক্তারুজ্জামান আক্তার নির্বাচিত হলে তিনি দ্বিতীয় বারের মতো দায়িত্ব পালন করবেন। তবে অন্য কেউ নির্বাচিত হলে নতুন মুখ হবেন।
৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত জগন্নাথপুর পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ২৮৬৪২ জন। ১১টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনটি শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। তবে এবার এই প্রথম বারের মতো ইভিএম পদ্ধতির ভোট নিয়ে ভোটারদের মধ্যে কৌতূহলের শেষ নেই।
এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে ৫, নারী কাউন্সিলর পদে ৯ ও পুরুষ কাউন্সিলর পদে ৩৯ সহ মোট ৫৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্রার্থীরা হলেন মেয়র পদে আ.লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী বর্তমান পৌর মেয়র মিজানুর রশীদ ভূইয়া (নৌকা), স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সাবেক পৌর মেয়র আক্তারুজ্জামান আক্তার (চামচ), বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী হারুনুজ্জামান (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী আমজদ আলী শফিক (মোবাইল ফোন) ও স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী বিষ্ণু চন্দ্র রায় (জগ)।
নারী কাউন্সিলর প্রার্থীরা হলেন ১, ২ ও ৩ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ড থেকে বর্তমান নারী কাউন্সিলর আয়ারুন্নেছা (আনারস) ও শিল্পী বেগম (চশমা)। ৪, ৫ ও ৬ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ড থেকে সাবেক নারী কাউন্সিলর বাহারজান বিবি (জবাফুল), পিয়ারা বেগম (চশমা) ও অর্চনা ধর (আনারস)। ৭, ৮ ও ৯ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ড থেকে বর্তমান নারী কাউন্সিলর নার্গিস ইয়াসমিন (আনারস), সাবেক কাউন্সিলর সুর্বণা শর্মা (চশমা), বাবলী বেগম (টেলিফোন) ও ফুলবানু বেগম (জবাফুল)।
পুরুষ কাউন্সিলর প্রার্থীরা হলেন- ১নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর খলিলুর রহমান (পানির বোতল), আবদুল ওয়াহাব (টেবিল ল্যাম্প), শাহিন আহমদ (পাঞ্জাবি), আবদুল বাশির (উটপাখি), ছালিক মিয়া (ব্ল্যাকবোর্ড) ও আলাউর রহমান (ডালিম)। ২নং ওয়ার্ড থেকে জিতু মিয়া (উটপাখি), মল্লিক এমরান (পানির বোতল) ও এমদাদুল হক (পাঞ্জাবি)। ৩ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর তাজিবুর রহমান (পাঞ্জাবি), লিটন মিয়া (পানির বোতল) ও আলাল হোসেন (উটপাখি)। ৪ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর দিলোয়ার হোসেন (পানির বোতল), সাবেক কাউন্সিলর সুহেল আমিন (ব্ল্যাক বোর্ড), কামাল হোসেন (পাঞ্জাবি), তাইফুর রহিম নাহিদ (ডালিম), আবদুল কাইয়ূম বাবর (টেবিল ল্যাম্প), ফজর আলী (উটপাখি), কবির মিয়া (গাজর) ও বাবুল আহমদ বাবুল (ব্রিজ)। ৫ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র শফিকুল হক (পানির বোতল), আবদুল কাইয়ূম (উটপাখি) ও মাঈন উদ্দিন (পাঞ্জাবি)। ৬ নং ওয়ার্ড থেকে কৃষ্ণ চন্দ্র চন্দ (পানির বোতল), আবদুল কাদির (উটপাখি), গোবিন্দ দেব (পাঞ্জাবি) ও আলী হোসেন (ডালিম)। ৭ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ সুহেল আহমদ (উটপাখি), ছালিক আহমদ পীর (ডালিম), শেখ ইলিয়াছ আলী (পানির বোতল) ও সৈয়দ জিতু মিয়া (পাঞ্জাবি)। ৮ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর আবাব মিয়া (পাঞ্জাবি), সাফরোজ ইসলাম মুন্না (পানির বোতল), শামীম আহমদ (উটপাখি) ও শাহানুল হক (ডালিম)। ৯ নং ওয়ার্ড থেকে বর্তমান পৌর কাউন্সিলর দিপক গোপ (ব্ল্যাক বোর্ড), ছমির উদ্দিন (ডালিম), আবু তালেব (উটপাখি) ও আনহার মিয়া (পানির বোতল)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী