শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন

Notice :

বড়গোপটিলা : সড়ক যেন মরণফাঁদ

সাজ্জাদ হোসেন শাহ্ ::
তাহিরপুর উপজেলার বড়দল উত্তর ইউনিয়নের বড়গোপটিলার আঁকাবাঁকা সড়কটি এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার নেই সড়কটির। বেহাল সড়ক দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছেন মানুষ।
বেহাল সড়কটির বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্তের। ফলে যেকোনো মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এদিকে, ভ্রমণ পিপাসুরা তাহিরপুরের সৌন্দর্যে মুগ্ধ হলেও উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশের পাশাপাশি টিলার আঁকাবাঁকা সড়কটি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। আর বড়গোপটিলা সড়কটির বেহাল অবস্থা দেখে রীতিমতো অভিযোগ তুলছেন দায়িত্বশীলদের প্রতি। আর দায়িত্বশীলরা বলছেন, খুব শিগগির সংস্কার করা হবে এ সড়ক।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বড়গোপটিলায় উঠার জন্য এলজিইডির প্রায় ১ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের উঁচুনিচু, আঁকাবাঁকা একটি সড়ক রয়েছে। আর এই সড়ক বেয়েই পর্যটকরা উপরে উঠে প্রকৃতির সৌন্দর্য উপভোগ করেন। তবে উপড়ে উঠতে গিয়েই বিড়ম্বনায় পড়ছেন পর্যটকরা। কারণ এই এক কিলোমিটার সড়কের বেশিরভাগ জায়গায়ই রয়েছে বড় বড় গর্ত আর খানাখন্দ। আর এসব গর্তের কারণে প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা। সড়কটি আঁকাবাঁকা হওয়ায় ঝুঁকি বেড়েছে আরও কয়েকগুণ।
কুষ্টিয়া থেকে বেড়াতে আসা ইমরান আহমেদ বলেন, দূর থেকে যতটা শুনেছি বা বিভিন্ন মাধ্যমে দেখেছি তার থেকেও বেশি ভালোলাগা বোধ কাজ করছে সৌন্দর্যের এতো কাছে আসতে পারে। বড়গোপটিলার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর আঁকাবাঁকা পথ অসাধারণ। তবে আঁকাবাঁকা রাস্তার বেশ কিছু স্থানে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। যা দেখার পর মোটরসাইকেল চড়ে উপরে উঠার সাহস পাইনি।
বড়গোপটিলা, যাদুকাটা, বড়ছড়া, শিমুল বাগান রুটে যাতায়াতকারী কয়েকজন মোটরসাইকেল চালক বলেন, ঘুরতে আসা পর্যটকরা মোটরসাইকেল নিয়ে টিলার এ রাস্তা বেয়ে সহজে উপরে উঠার সাহস করেন না। কারণ সড়কটির বিভিন্ন অংশে খানাখন্দ ও গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় রাস্তাটি বর্তমানে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। আমরা ভয় নিয়েই এ রাস্তা দিয়ে উপরে উঠানামা করি।
স্থানীয় বাসিন্দা শাহরিয়ার হাসান রুবেল বলেন, বড়গোপটিলায় মোটরসাইকেলে রাস্তা দিয়ে উপরে উঠানামা করার সময় অনেকসময় দুর্ঘটনা ঘটে। এতে অনেকে আহত হয়েছেন।
বড়দল উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আবুল কাসেম বলেন, বড়গোপটিলার আঁকাবাঁকা রাস্তাটি এখন ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে। বড়গোপটিলায় প্রশাসনের বা সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারাও ঘুরতে আসেন। আমি তাদেরকেও রাস্তাটির সংস্কারের জন্য বলেছি। তাছাড়া উপজেলা মাসিক সমন্বয় সভায় বিষয়টি বারবার উপস্থাপন করা হয়েছে। জেলার সংশ্লিষ্ট যারা রয়েছেন তাদেরকেও সড়কটির বেহাল দশার কথা জানিয়েছি।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর তাহিরপুরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. কাজী ফজলুল হক জানান, সড়কটি আমরা দেখেছি। পর্যটকদের জন্য এটা মারাত্মক ঝুঁকির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে জিওবি-এর স্কিম গ্রহণ করে প্রাক্কালন প্রেরণ করা হয়েছিল কিন্তু অনুমোদন পায়নি। তবে জরুরি ভিত্তিতে সড়কটি সংস্কার করা প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী