সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:০৬ পূর্বাহ্ন

Notice :

মোদির সফর ঠেকাতে বিক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার ::
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর বাতিলের দাবিতে ও দিল্লিতে সহিংসতার প্রতিবাদে সুনামগঞ্জে বিক্ষোভ ও গণমিছিল করেছে সমমনা ইসলামী দলগুলো। শুক্রবার জুমার নামাজের পরপরই খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে শহরের আলফাত স্কয়ারে সমবেত হতে থাকেন ইসলামী দলগুলোর নেতা-কর্মীরা। হাজারো নেতাকর্মীর প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি প্রিন্সিপাল মাওলানা শায়খ আব্দুল বছির।
জেলা জমিয়তের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা তৈয়্যিবুর রহমান চৌধুরীর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন আলেমেদ্বীন শায়খুল হাদীস আল্লামা নুরুল ইসলাম খান, সুনামগঞ্জ ইমাম মুয়াজ্জিন পরিষদের সভাপতি মাওলানা শায়খ আনোয়ার হোসাইন, জেলা জমিয়তের সহ-সভাপতি মাওলানা শায়খ আফসার উদ্দিন, মাওলানা শায়খ সাজিদুর রহমান, খেলাফত মজলিসের সহ-সভাপতি জনাব সাখাওত হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা খলিল আহমদ, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের সভাপতি মাওলানা নুরুদ্দীন, সহ-সভাপতি মুফতি আজিজুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা হাফিজ জয়নুল ইসলাম, হেফাজত ইসলাম সুনামগঞ্জের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শায়খ আব্দুল হক আহমদী, ইমাম মুয়াজ্জিন পরিষদের সহসভাপতি মাওলানা আবু সাইদ, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন, জমিয়ত নেতা মাওলানা মুশতাক আহমদ গাজিনগরী, মাওলানা আব্দুর রকিব, মাওলানা আবু সাইদ, যুবনেতা মাওলানা আব্দুল হাই, ছাত্রনেতা হাফিজ মাওলানা তাহা হোসাইন, খেলাফত মজলিস নেতা মাওলানা নুরুল ঈমান, মাওলানা শোয়াইব আহমদ, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস নেতা মাওলানা সাইফুর রহমান সাজাওয়ার, ইসলামী আন্দোলন সুনামগঞ্জ জেলা সভাপতি মাওলানা শহীদুল ইসলাম পলাশী প্রমুখ।
সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জমিয়ত উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ, খেলাফত মজলিস, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, ইসলামি আন্দোলনের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শায়খুল হাদীস আল্লামা নুরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে হুমকি মুক্ত রাখতে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি যাতে বাংলাদেশে আসতে না পারে এ জন্য আমরা একের পর এক আন্দোলন চালিয়ে যাবো। তাছাড়া আমাদের সংবিধান মতেও বিশ্বের যে কোন দেশে ও অঞ্চলের নিপীড়িত মানষের পক্ষে অবস্থান নেওয়ার জাতীয় দায়িত্ব রয়েছে। দিল্লিসহ গোটা ভারতে মুসলমানদের বিরুদ্ধে চতুর্মুখী যে ষড়যন্ত্র ও দমন-পীড়ন এবং উচ্ছেদাভিযান চলছে, এর বিরুদ্ধে সোচ্চার প্রতিবাদে অংশ নেওয়ার আমাদের সাংবিধানিক দায়িত্ব। পাশাপাশি তিনি সুনামগঞ্জের সাদপন্থীদের ইজতেমা বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানান।
সভাপতির বক্তব্যে মাওলানা শায়খ আব্দুল বছির বলেন, সরকারের মন্ত্রীরা যেভাবে মোদির আগমনকে কেন্দ্র করে অতি উৎসাহী বক্তব্য প্রদান করছেন, তা জাতির জন্য সংঘাত ছাড়া কোনো কল্যাণ বয়ে আনবে না। সরকার যদি স্বীয় সিদ্ধান্তে অটল থাকে তাহলে জনগণকে সাথে নিয়ে কঠিন কর্মসূচি প্রদান করা ছাড়া আমাদের সামনে আর কোনো পথ খোলা থাকবে না। তখন আমাদের ঈমানী, মানবিক ও জাতীয় দায়িত্ব হবে মোদিকে প্রতিহত করতে দল-মত নির্বিশেষে দেশের সকল জনগণকে সাথে নিয়ে আন্দোলনের ময়দানে ঝাঁপিয়ে পড়তে বাধ্য হবো।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মাওলানা আনোয়ার হোসাইন বলেন, জীবনবাজি রেখে হলেও মোদির আগমনকে প্রতিহত করবো ইনশাআল্লাহ।
সমাবেশ শেষে আলফাত স্কয়ার থেকে এক গণমিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের কাজির পয়েন্ট এলাকায় গেলে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় বিক্ষোভকারীরা সদর উপজেলার কুরবাননগর ইউনিয়নের ধারারগাঁও এলাকায় অনুষ্ঠিত “সাদ”পন্থীদের ইজতেমা বন্ধ করার আহ্বান জানিয়ে অবস্থান গ্রহণ করেন। পরে সাদপন্থীদের সাথে পুলিশ সুপার জরুরি বৈঠক করে তাদের ইজতেমা বন্ধ করার নির্দেশ দিলে বিক্ষোভ সমাবেশ সমাপ্তি হয়।
এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, সরকারের নির্দেশনা রয়েছে জেলা পর্যায়ে কোন গ্রুপ ইজতেমা করতে পারবে না। তাই আমি তাদের সাথে বসে চলমান ইজতেমা বন্ধ করা জন্য বললে ওই গ্রুপের মানুষরা সেটা মেনে নিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী