শনিবার, ১৫ অগাস্ট ২০২০, ১০:৪৭ অপরাহ্ন

Notice :

হাওরে ১৮ কি.মি. উড়াল সড়ক হবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার ::
পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বলেছেন, সরকার ৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ধর্মপাশা-মোহনগঞ্জ পর্যন্ত হাওরে ১৮ কিলোমিটার উড়াল সড়ক হবে। আগামী দুই মাসের মধ্যে সড়ক নির্মাণ প্রকল্প অনুমোদন লাভ করবে। মেডিকেল, টেক্সটাইল কলেজের পর শীঘ্রই সুনামগঞ্জে বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয় প্রকল্পও পাস করা হবে। সুনামগঞ্জ আর উন্নয়নে পিছিয়ে থাকবে না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতীয় উন্নয়ন সমতায় ফিরবে সুনামগঞ্জ। মন্ত্রী সমালোচকদের চুপ থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, উন্নয়ন নিয়ে ষড়যন্ত্র করবেন না। এই উন্নয়ন আমি ভোগ করব না। সারা জেলার মানুষ ভোগ করবে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স কর্তৃক আয়োজিত ১৫তম বাণিজ্যমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পরিকল্পনামন্ত্রী।
সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খায়রুল হুদা চপলের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও বিরোধী দলীয় হুইপ অ্যাড. পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, পৌর মেয়র নাদের বখত, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. জিয়াউল হক, চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি আমিনুল হক, পরিচালক খন্দকার মঞ্জুর আহমদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল কালাম প্রমুখ।
পরিকল্পনামন্ত্রী দেশের সার্বিক উন্নয়নের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, সময় এখন উন্নয়নের। দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় দেশপ্রেমিক ও খাঁটি বাঙালির সঠিক নেতৃত্ব প্রয়োজন। মেকি বাঙালিদের দ্বারা সেটা সম্ভব নয়। তিনি বলেন, দেশবাসী ১৯৭১ সনে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল। এখন তাঁর সুযোগ্য কন্যা আমাদের সফল নেতা হয়ে উন্নয়ন ও পরিবর্তনের মাধ্যমে দেশকে বিশ্বের দরবারে সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে গেছেন।
দেশের বিদ্যুৎ উন্নয়ন সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, কেউ কখনও চিন্তা করেনি দুর্গম হাওরের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে। হাওরের অজোপাড়া গ্রামও আজ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত। এমএ মান্নান বলেন, কে চিন্তা করেছিল কর্র্ণফুলি নদীর নিচ দিয়ে টানেল হবে, কে চিন্তা করেছিল পদ্মাসেতু হবে। রাস্তাঘাট, হাসপাতাল, শিক্ষা এমন কোনো ক্ষেত্র নেই প্রধানমন্ত্রীর হাত নেই। শেখ হাসিনা আমাদের যোগ্য নেতা। তাঁর নেতৃত্বেই দেশের পরিবর্তন সম্ভব।
সুনামগঞ্জের উন্নয়নের দিকে ইঙ্গিত করে সমালোচকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, কিছু অহেতুক বিভ্রান্তি ছড়িয়ে সুনামগঞ্জের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করা হচ্ছে। এরা সুনামগঞ্জের বিরুদ্ধে জনমত গড়ার চেষ্টা করছে। এতে সুনামগঞ্জের মানুষের ক্ষতি হচ্ছে। জেলার ছেলেমেয়েদের ভবিষ্যতের ক্ষতি হচ্ছে। এই ষড়যন্ত্রকারীরা সুনামগঞ্জকে পিছিয়ে দিতে চায়।
সমালোচকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী আরো বলেন, পারলে সহযোগিতা করেন, নয় চুপ থাকেন। সৎ রাজনীতি করতে হলে মন পরিষ্কার করতে হবে। হিংসা করে রাজনীতি হয় না। সহযোগিতা না করতে পারলে অহেতুক বিতর্ক ছড়াবেন না।
মন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, আমি পরিষ্কার মন নিয়ে সুনামগঞ্জের উন্নয়নে কাজ করছি। আমি সুনামগঞ্জের পরিচয়ে গর্ববোধ করি। সুনামগঞ্জে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হচ্ছে। ট্যাক্সটাইল ইনস্টিটিউট সুনামগঞ্জের নামে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ও সুনামগঞ্জের নামে হবে। ছাতক থেকে রেল সুনামগঞ্জে আসবে। কিন্তু আমি এতো বোকা নই যে, ঘুরিয়ে শান্তিগঞ্জ রেল নিয়ে যাব। এটা সমালোচকরা বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।
মন্ত্রী বলেন, হাওরে ৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ১৮ কিলোমিটার ফ্লাইওভার নির্মিত হবে। ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে শহর উন্নয়নে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। পৌর কলেজ, পলাশ হাইস্কুল, ইসলামগঞ্জ ডিগ্রি কলেজসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বহুতল ভবন করে দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর নামে শহরে একটি পার্ক নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আবুল হোসেন মিলনায়তনকে অত্যাধুনিক করার জন্যে ৫০-৬০ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণের প্রস্তুতি চলছি। এসব আমার গ্রাম ডুংরিয়া বা শান্তিগঞ্জের জন্য করা হচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী