বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:৫৫ পূর্বাহ্ন

Notice :

আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদযাপিত

স্টাফ রিপোর্টার ::
সুনামগঞ্জে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদযাপিত হয়েছে। ‘আমরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে একতাবদ্ধ’ – এই প্রতিপাদ্যে এ বছর তৃতীয়বারের মত প্রত্যক্ষভাবে সরকারের সাথে দিবসটি উদযাপন করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি), দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি (দুপ্রক) এবং জেলা প্রশাসন, সুনামগঞ্জ।
দিবসটি উপলক্ষে সোমবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ। এরপর মানববন্ধন ও দুর্নীতিবিরোধী গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়।
মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনেক আগেই উল্লেখ করে গেছেন- দুর্নীতি আমার কৃষক, আমার শ্রমিক করে না, ক্ষেত মজুর করে না। দুর্নীতি করে যারা সেবা প্রদান করে, যারা শিক্ষিত সমাজ তারা। তারই যোগ্য উত্তরসূরী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিশন ২০২১, এসডিজি-২০৩০ ও উন্নত বাংলাদেশের ভিশন ২০৪১ অর্জনে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ ঘোষণা করেছেন এবং আমাদের প্রতি নির্দেশনা প্রদান করেছেন। আর এটি বাস্তবায়নে প্রয়োজন আমাদের সদিচ্ছা। আমরা যারা প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োজিত তারা সাংবিধানিকভাবে প্রজাতন্ত্রের জনগণের কাছে সেবা প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ‘জনগণের দোরগোড়ায় কাক্সিক্ষত সেবা স্বল্পতম সময়ে বিনা অথবা নির্ধারিত মূল্যে পৌঁছে দেওয়া’র নির্দেশনাকে উল্লেখ করে তিনি বলেন, যদি এটি আমরা মনে রাখি তবে আমাদের কারও আর দুর্নীতি করার সুযোগ থাকবে না। শুধুমাত্র আর্থিক বিষয়ে নয়, বরং সেবার জন্য প্রক্রিয়াকে দীর্ঘায়িত করা, নিয়মের বেড়াজালে হয়রানি সৃষ্টি, ভুল ব্যাখ্যা প্রদান, আবেদন আমলে না নিয়ে দিনের পর দিন ফেলে রাখা, উন্নয়ন কর্মকাণ্ড ও দাপ্তরিক কাজে অবহেলাও দুর্নীতির অন্তর্ভুক্ত। আসুন শপথ নেই যে, জনসেবক হয়ে সেবাগ্রহীতাদের হয়রানিমুক্ত সেবা নিশ্চিত করবো। তাহলেই এ দিবস উদযাপন সফল হবে এবং আমরা দুর্নীতিমুক্ত সোনার বাংলা পাবো।
সহকারী কমিশনার (সাধারণ শাখা) মোহাম্মদ আল আমিন সরকারের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে দুদকের সহকারী পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, বাংলাদেশের যেসকল সেক্টরে দুর্নীতি বিদ্যমান রয়েছে। দুদক ও দুপ্রক চেষ্টা করছে জনগণকে সচেতন করে সেটিকে কঠোরভাবে প্রতিহত করার। তিনি কোন সরকারি অফিসে দুর্নীতি হচ্ছে জানলে ১০৬ নম্বরে কল দিয়ে তা অবগত করারও আহ্বান করেন।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আবু তারেক উল্লেখ করেন, আমরা দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ দেখতে চাই। আর এজন্য সকলকে দুর্নীতি না করা এবং অন্যকে দুর্নীতি করতে না দেওয়ার শপথ নেবার আহ্বান করেন।
মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্যে সনাক সভাপতি ধূর্জটি কুমার বসু আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবসে সকলকে ‘নিজে দুর্নীতি করবো না’ এই দীক্ষায় শপথ নেবার কথা উল্লেখ করে বলেন, তাহলেই আমাদের দেশটি একটি দুর্নীতিমুক্ত সোনার বাংলা হয়ে উঠবে।
সনাক সদস্য ও জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহসভাপতি পরিমল কান্তি দে বলেন, বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে এবং আরও এগিয়ে যেত। কিন্তু এর প্রধান বাধা হচ্ছে দুর্নীতি। কাজেই আজকের দিনে আসুন আমরা শপথ করি, নিজে দুর্নীতি করবো না, কোন অফিসে দুর্নীতি করবো না এবং দুর্নীতিকে ঘৃণা করবো। আর এজন্য আমাদের বিবেককে জাগ্রত করতে হবে।
মানববন্ধনে সুনামগঞ্জের বিভিন্ন দপ্তরের মধ্যে জেলা শিল্পকলা একাডেমি, সদর উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরাম, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, গণপূর্ত বিভাগ, এলজিইডি, ব্র্যাক সামাজিক উন্নয়ন কর্মসূচি, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, প্রাথমিক শিক্ষা অফিস এবং তাদের কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ অংশগ্রহণ করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ এমরান হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. হারুন অর রশীদ, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রাশেদ ইকবাল চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জিল্লুর রহমান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মোহাম্মদ সফর উদ্দিন, সনাক উপদেষ্টা হোসেন তওফিক চৌধুরী, সনাক সহ-সভাপতি অ্যাড. খলিল রহমান ও কানিজ সুলতানা, সনাক সদস্য যোগেশ্বর দাশ, মুক্তিযোদ্ধা হাজী সৈয়দুর রহমান, অ্যাড. আইনুল ইসলাম বাবলু, স্বজন সদস্যবৃন্দ, ইয়েস সদস্যবৃন্দ, ইয়েস ফ্রেন্ডস সদস্যবৃন্দ এবং সাধারণ জনগণ অংশগ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য, টিআইবি ২০০৪ সাল থেকে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদযাপন করছে এবং ২০১৩ সাল থেকে দিবসটি সরকারিভাবে পালন ও স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে আসছিলো। যার ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ২০১৭ সাল থেকে সরকারিভাবে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদযাপন করছে। দুর্নীতি প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি আন্তর্জাতিক, রাষ্ট্রীয়, সরকারি ও সংশ্লিষ্ট দেশের সকল নাগরিকসহ সকল অংশীজনের- এই মর্মে প্রচারণা ও অধিপরামর্শমূলক কার্যক্রম পালন করা এই দিবসটি উদযাপনের মূল লক্ষ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী