বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৪:৫৬ অপরাহ্ন

Notice :

বাজারের অস্থিরতা ঠেকাতে হবে

প্রথমে পেঁয়াজ ও পরে লবণ, এই দু’টি নিত্যপণ্যের বিক্রয়মূল্যকে অতিরিক্ত মাত্রায় বাড়িয়ে দিয়ে বাজারকে অস্থির করে তোলা হয়েছে। পত্রিকায় লেখা হয়েছে, ‘পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছে।’ এই বাজার অস্থির করার কারও কোনও উদ্দেশ্য নেই, আসলে পেঁয়াজ ও লবণ অতিরিক্ত দামে বিক্রি করে মুনাফাকে বহুগুণে বাড়িয়ে তোলাই ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্য এবং ব্যবসায়ীরা তাদের এই দুরভিসন্ধি কার্যত বাস্তবায়ন করতে যখন পারেন, তখনকার বাজারের পরিস্থিতিকে বা অবস্থাকেই বলা হয়ে থাকে বাজারের অস্থিরতা, আসলে বলা উচিত উচ্চমূল্যের বাজার। যখন বাজারের অস্থিরতার কথা বলা হয় তখন কার্যত মানুষের আর্থিক ক্ষতির দিকটি, কম দামের জিনিস বেশি দামে ক্রয় করে ক্রেতার ফতুর হওয়ার বিষয়টি, বাজারের অস্থিরতার ধারণার আড়ালে ঢাকা পড়ে।
মুক্তবাজার অর্থনীতি চালু রেখে বাজারের মুখে লাগাম লাগানোর কথা যতোই বলা হোক, আসলে তা কোনও কাজের কাজ নয়। সরকার যতোই চেষ্টা করুন না কেন, আর্থসামাজিক বিন্যাসকে পাল্টে না দিয়ে, আলুপটল, পেঁয়াজলবণের বাজারের ক্ষণে ক্ষণে অস্থির হয়ে উঠার প্রবণতাকে কীছুতেই লাগাম পরানো যাবে না। কারণ এই অস্থির হয়ে উঠার পেছনে কাজ করে মুনাফা। ব্যবসায়ীর মুনাফা অর্জনের প্রবণতার দুরন্ত ঘোড়ার মুখে লাগাম পরাতে না পারলে বাজার প্রতিনিয়তই অস্থির হতে থাকবে, যতোই চেষ্টা করা হোক না কেন।
পত্রিকার প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, পেঁয়াজ নিয়ে কারসাজি বন্ধের জন্য আমদানি মূল্য ও বিক্রয়মূল্যের মধ্যে পার্থক্য খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই তো চাই, এবং চাইলেই হবে না, বরং কঠোর হতে হবে। এই কঠোরতার কোনও বিকল্প নেই। অন্তত এটা নিশ্চিত করতে হবে যে, দেশের গরিব ও নিম্নবিত্ত মানুষেরা খেয়ে পরে বেঁচে থাকার নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যগুলোর ক্ষেত্রে এই নীতিকে, অর্থাৎ বেশি লাভ নয়, পরিমিত পরিমাণে লাভ করার নীতিকে, প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। কিন্তু বিগদ্ধমহলের মতে বর্তমানে রাষ্ট্রক্ষমতায় আসীন শ্রেণির সকল প্রকার পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণের কর্মকা- শেষ পর্যন্ত পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণবিমুখ হয়েই থাকবে, মুক্তবাজার অর্থনীতির নিয়মের বাইরে যাওয়া সম্ভব হবে না। যেহেতু সাম্যনীতি নয়, মুক্তবাজার অর্থনীতির নিয়মেই দেশ চলছে। তারপরও আমরা আশা করি অচিরেই এইসব বা এই রকমের সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার দর নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার সফল হবেন এবং আমদানিমূল্য ও বিক্রয়মূল্যের ভেতরে তফাৎটাকে এমন পর্যায়ে নামিয়ে আনতে পারবেন, যাতে বাজার অস্থির না হয়ে উঠে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী