রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন

Notice :

চাকরির পেছনে না ঘুরে উদ্যোক্তা হোন : জেলা প্রশাসক

স্টাফ রিপোর্টার ::
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেছেন, পড়ালেখা শেষ করে চাকরির পেছনে না ঘুরে যুবসমাজকে উদ্যোক্তা হতে হবে। উন্নত দেশ হতে হলে আমাদের প্রচুর উদ্যোক্তা দরকার, যাদের ছোট ছোট অভিনব উদ্যোগ খুব দ্রুত দেশকে এগিয়ে নেবে।
তিনি আরো বলেন, দক্ষ জনশক্তি হিসেবে যুবসমাজকে গড়ে উঠতে হবে। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ অপার সম্ভাবনাময় দেশ হিসেবে বিশ্বের দরবারে পরিচিতি লাভ করতে সক্ষম হয়েছে। তাই আমাদের যুব সমাজকে নিজেদের বিবেক বুদ্ধিকে কাজে লাগিয়ে দেশ গড়ার কাজে এবং নিজেদের স্বাবলম্বী হওয়ার পথ বেছে নিতে হবে। উৎপাদনমুখী জীবন ব্যবস্থার প্রতি মনোনিবেশ করতে হবে। সরকারি অনেক সুযোগ সুবিধা রয়েছে। এসব সুযোগ সুবিধাকে কাজে লাগাতে হবে।
তিনি শুক্রবার সকালে শহরে শহীদ আবুল হোসেন মিলনায়তনে জাতীয় যুব দিবস উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ আরো বলেন, প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে কোন যুবক-যুবতী কোন তফসিলি ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে হয়রানির শিকার হলে তা বরদাস্ত করা হবে না। জানতে পারলে সাথে সাথে বিহিত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শরীফুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের ডেপুটি কো-অর্ডিনেটর শওকত ওসমান শামীম, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সহকারী উপ-পরিচালক মো. শাহনুর আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ হারুন-অর রশিদ।
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রশিক্ষক মো. আলমগীর কবির ও প্রশিক্ষণার্থী রুপা চন্দের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ পেয়ার আহমেদ, জাতীয় যুব সংগঠক এম তাজুল ইসলাম, জেলা যুব প্রতিনিধি মিজানুল হক সরকার, সফল আত্মকর্মী জান্নাত মরিয়ম, যুব সংগঠক আবিদুর রহমান প্রমুখ।
পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আলী আহম্মেদ এবং গীতা পাঠ করেন সুদীপ লাহিড়ী।
আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সফল আত্মকর্মী ও যুব সংগঠদের ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। ৫টি যুব সংগঠনকে যুব কল্যাণ তহবিলের অনুদানের চেক প্রদান করা হয়। তাছাড়া যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রশিক্ষণার্থীদের সনদ বিতরণ করা হয়।
আলোচনা সভার আগে “দক্ষ যুবক গড়ছে দেশ – বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ” স্লোগানকে সামনে রেখে শহরে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।
এ বছর উপজেলা পর্যায়ে সফল আত্মকর্মীরা হলেন সুনামগঞ্জ সদরের ফুয়াদ কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারের মো. আবিদুর রহমান, মোছা. দোলনা আক্তার ও শাল্লার কাজল চন্দ্র সূত্রধর। জেলা পর্যায়ে সফল আত্মকর্মীরা হলেন- উত্তর আরপিননগরের শিল্পী বেগম ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মো. জাহাঙ্গীর আলম।
জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠকগণ হলেন- সুনামগঞ্জ সদরের বহুমুখী যুব উন্নয়ন ফোরামের মো. মতিউর রহমান, দক্ষিণ ছাতক যুব উন্নয়ন সমিতির মো. ফখরুল হোসেন ও সদর উপজেলার ফেনিবিল সমাজকল্যাণ যুব সংঘ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী