বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৪:৩৬ অপরাহ্ন

Notice :

আ.লীগে কোনো দূষিত রক্ত থাকবে না : ওবায়দুল কাদের

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
আওয়ামী লীগের ভেতরে কোনো দূষিত রক্ত আর থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলের সাধারণ স¤পাদক এবং সড়ক পরিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। রোববার বিকেলে রাজশাহী জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আওয়ামী লীগের রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধিসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
রাজশাহী বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের দলের অপকর্মকারী সতর্ক করে দিয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। তার নির্দেশে কেবল ঢাকা নয়, সারাদেশেই এ অভিযান চলবে। সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজরাও এ অভিযান থেকে রেহাই পাবে না। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর বঙ্গবন্ধু আইন করে নিষিদ্ধ করলেও জিয়াউর রহমান ক্ষমতা দখলের পর ক্যাসিনো, মদ, জুয়ার বৈধতা দিয়েছিলেন। স্বাধীন বাংলাদেশে এই প্রথম নিজের দলের ভেতর থেকেই শুদ্ধি অভিযানের মতো দুঃসাহস দেখিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নিজের দলের অপরাধীকে শাস্তি দেওয়ার মতো সৎ সাহস আর কোনো শাসক দেখাতে পারেননি। আগামী ২০ ও ২১ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলেও এবার বিশুদ্ধ নেতা নির্বাচন করা হবে।
আওয়ামী লীগের নেতায় নেতায় দ্বন্দ্ব নিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘরের মধ্যে ঘর করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি খাটাবেন না। দুঃসময়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের কোণঠাসা করে আওয়ামী লীগ টিকে থাকতে পারে না। আজ বসন্তের কোকিলরা যদি দলের নেতৃত্ব নেয়, তারা যদি প্রাধান্য পায়, আবারও দুঃসময় আসতে পারে। আবারও দুর্যোগ আসতে পারে, অমানিশা আসতে পারে। সে সময় হাজার পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও এই সুবিধাবাদী অপকর্মকারীদের খুঁজে পাওয়া যাবে না। ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিল সামনে রেখে দলের তৃণমূল নেতাদের চাঙা করতেই বিভাগীয় পর্যায়ের এ প্রতিনিধিসভা।
সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর সরকার দ্রুত ব্যবস্থা নিলেও বিএনপি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উসকানি দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম।
সভায় দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক তৃণমূলকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা আত্মীয়-স্বজন সেজে দলে অনুপ্রবেশ করছে। তাদের ভিড়ে এখন কোণঠাসা দলের ত্যাগী নেতারাই। তাই এদের রুখে দিতে হবে।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানান, দলে অনুপ্রবেশের পর বিত্তবৈভবের মালিক হওয়া ব্যক্তিরাও চলমান শুদ্ধি অভিযান থেকে ছাড় পাবে না। সময়মতো সব দুর্নীতিবাজ এর আওতায় আসবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী