রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৭:০৯ অপরাহ্ন

Notice :

দাবিতেই বন্দি সুনামগঞ্জ শহর রক্ষা প্রকল্প

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জ শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প দাবিতেই সীমাবদ্ধ রয়ে গেছে। বিভিন্ন ফোরামে নাগরিক ও জনপ্রতিনিধিরা এই দাবি জানালেও সরকারিভাবে এখনো কোনো প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে না। যার ফলে পাহাড়ি ঢল ও ভারি বর্ষণের শুরুতেই শহর সুনামগঞ্জ প্লাবিত হয়। চলতি বছরের জুলাই-আগস্ট মাসে শহরের নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হয়েছিল। শহররক্ষা বাঁধ থাকলে এই সমস্যা হতো না বলে মনে করেন সুধীজন।
পরিবেশবিদ ও অভিজ্ঞজনেরা জানান, ভারতের মেঘালয় রাজ্যের পাদদেশে অবস্থানের কারণে সুনামগঞ্জ পাহাড়ি ঢল ও আগাম বন্যার ঝুঁকিতে থাকে। সম্প্রতি এই ঝুঁকি বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়াও স্থানীয়ভাবে ভূমির প্রকৃতি বদলে দেওয়ার কারণেও জলাবদ্ধতাসহ নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে শহরে। শহররক্ষা বাঁধ থাকলে পাহাড়ি ঢল ও আগাম বন্যা থেকে শহরবাসী রক্ষা পেতেন বলে মনে করেন সুধীজন।
জানা গেছে, ১৯৮৫ সালে সুনামগঞ্জ পৌরসভা ‘বি’ ক্যাটাগরিতে থাকার সময় বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় ১ কোটি ১৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। সুরমা নদীর ধোপাখালির পাড় থেকে বাজার এলাকা পর্যন্ত শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন হওয়ার কথা ছিল। পরে বরাদ্দের এই টাকা প্রশাসনের তখনকার প্রভাবশালী এক কর্মকর্তা জকিগঞ্জে তার এলাকায় নিয়ে যান। ফলে তখন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হয়নি।
নাগরিকরা জানান, সুনামগঞ্জ শহররক্ষা প্রকল্প বাস্তবায়ন না হওয়ায় সুরমা নদীর পানি বাড়লেই লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। এতে ভোগান্তি বেড়েই চলছে। ২০১৭ সালে হাওরডুবির সময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী, পানিসম্পদ মন্ত্রী ও সচিব সুনামগঞ্জে আসলে তৎকালীন মেয়র আয়ূব বখত জগলুল শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণের দাবি জানান। এছাড়াও শহরের নাগরিকরা বিভিন্ন ফোরামে শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছেন। সম্প্রতি একাধিক ফোরামে বর্তমান পৌর মেয়র নাদের বখতও একই দাবি জানিয়েছেন। তাছাড়া শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণের জন্য পাবলিক সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সাদিকও সরকারি সংশ্লিষ্ট দফতরকে অবহিত করেছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে উদ্যোগ লক্ষ্য করা যাচ্ছে না।
জানা গেছে, সম্প্রতি পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রায় ১ হাজার কোটি টাকারও বেশি বরাদ্দের একটি প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছে। এই প্রকল্পে শহরের কিছু অংশে বাঁধ নির্মাণের বিষয়টিও যুক্ত করা হয়েছে।
পৌর মেয়র নাদের বখত বলেন, আমরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ফোরামে শহররক্ষা বাঁধ নির্মাণ প্রকল্পের দাবি জানিয়ে আসছি। কারণ মেঘালয়ের নিকটে আমাদের সুনামগঞ্জের অবস্থানের কারণেই বর্ষায় সুরমা নদী উপচে শহরে পানি ঢুকে পড়ে। এতে নাগরিকদের ভোগান্তি বৃদ্ধির পাশাপাশি ক্ষয়ক্ষতিও হয়। আমরা সুনামগঞ্জ শহর রক্ষার জন্য আলাদা প্রকল্প গ্রহণের দাবি জানাই। তিনি বলেন, শুনেছি সম্প্রতি পাউবো জেলার নদী তীর রক্ষায় প্রায় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প জমা দিয়েছে। এখানে সুনামগঞ্জ শহরেরও নদী তীর রক্ষায় কয়েকটি এলাকায় বাঁধ নির্মাণের কথা বলা হয়েছে জানতে পেরেছি।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু বকর সিদ্দিক ভূইয়া বলেন, সুনামগঞ্জে নদী তীর রক্ষায় একটি প্রকল্প মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছি। এখানে সুনামগঞ্জ শহরসহ কয়েকটি উপজেলার ভাঙন কবলিত এলাকা রক্ষায় বাঁধ করা হবে। এই প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে শহরসহ কয়েকটি উপজেলার শহররক্ষা বাঁধের কাজও হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী