সোমবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

Notice :

একটি রাস্তার জন্য ২০ হাজার মানুষের দুর্ভোগ

শহীদনুর আহমেদ ::
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের পাগলা-বীরগাঁও সড়কের একশ মিটার রাস্তার জন্য দুর্ভোগের শেষ নেই ইউনিয়নের ২০ হাজার মানুষের। মূল সড়ক থেকে নিচু ও পাকাকরণ না হওয়ায় এই রাস্তাটি কর্দমাক্ত থাকে আর বর্ষায় পানিতে তলিয়ে। পাগলা থেকে বীরগাঁও গ্রামের ভেতর পর্যন্ত পাকা রাস্তা থাকলেও সড়কের মধ্যবর্তী এই অংশের জন্য চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে মানুষদের। দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি মেরামতের দাবি ওঠলেও কর্ণপাত করছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
খোঁজ নিয়ে জানাযায়, পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নের পাগলা বীরগাঁও সড়ক দিয়ে যাতায়াত করেন ইউনিয়নের বীরগাঁও, হাঁসকুঁড়ি, ধৈলমনসা, খরেরগাঁও, ব্রাহ্মণগাঁও, সাদেরখালি, সলফ, ধরমপুরসহ পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের মানুষ। একমাত্র এই সড়ক দিয়েই বীরগাঁও বাজার, পাগলা বাজারসহ জেলা শহর, বিভাগীয় শহর সিলেটে যাতায়াত করেন তারা। বীরগাঁও ইমদাদুল হক উচ্চ বিদ্যালয়, বীরগাঁও ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা, বীরগাঁও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পাগলা কলেজসহ জেলা শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছেন ইউনিয়নের শত শত শিক্ষার্থী। চলতি বর্ষায় পূর্বহাটি নামক স্থানের কাচা রাস্তাটি পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় চরম বিড়ম্বনায় পড়েছেন এলাকাবাসী।
সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, এলাকাবাসীর দুর্ভোগের চিত্র। স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, পাগলা থেকে বীরগাঁও ব্রিজ পর্যন্ত বিটুমিনের পাকা সড়ক রয়েছে। গ্রামের ভেতরেও আরসিসি ঢালাই দেয়া সড়ক রয়েছে। কেবলমাত্র এই একশ মিটার কাচা রাস্তার জন্য তাদের এতো ভোগান্তি। দীর্ঘদিন ধরে রাস্তায় মাটি ফেলে উঁচু করা ও পাকাকরণের দাবি জানালেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এ ব্যাপারে উদাসীন।
স্থানীয় বাসিন্দা মিছকন আলী বলেন, মাত্র একশ মিটার রাস্তার জন্য মানুষের কষ্টের শেষ নেই। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আমাদের দুর্ভোগ দেখেও না দেখার ভান করেন। ভোটের সময় ভোট ভিক্ষা চান আর কাজের সময় তাদের পাত্তাই পাওয়া যায় না।
বীরগাঁও ইমদাদুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজ মিয়া বলেন, আমিসহ বিদ্যালয়ের পাঁচ জন শিক্ষক প্রতিদিন সুনামগঞ্জ থেকে আসি। এই একটু খানি রাস্তার জন্য দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ বলেন, এই রাস্তার জন্য এলাকাবাসীর দুর্ভোগের কথা আমার জানা। পথচারীদের চলাচলের সাময়িক সুবিধার জন্য পরিকল্পনামন্ত্রী কিছু বরাদ্দ দিয়েছিলেন রাস্তায় কংক্রিট ফেলার জন্যে। আগামীতে বীরগাঁও থেকে বীরগাঁও বাজার পর্যন্ত রাস্তার অসম্পূর্ণ কাজ সম্পন্ন করা হবে। যা মন্ত্রী মহোদয়ের নজরে আছে। আশা করছি এলাকাবাসীর দুর্ভোগ লাঘব হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী