শনিবার, ০৬ জুন ২০২০, ১০:৪০ অপরাহ্ন

Notice :

দুর্বৃত্তদের হামলা : মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন কৃষক নেতা আজাদ মিয়া

স্টাফ রিপোর্টার ::
দুর্বৃত্তদের হামলায় গুরুতর আহত হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন, সদর উপজেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক আজাদ মিয়া মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন। বর্তমানে তিনি সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
মোল্লাপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা আজাদ মিয়া গত বৃহস্পতিবার রাতে শহরের পিটিআই এলাকায় দুর্বৃত্তদের অতর্কিত হামলার শিকার হন। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। মাথার জখম গুরুতর হওয়ায় আজাদ মিয়া শঙ্কামুক্ত নয় বলে জানান নিউরোসার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা।
হাওরের বাঁধের কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় এলাকার প্রভাবশালীমহল ভাড়া করা সন্ত্রাসীদের দ্বারা আজাদ মিয়ার ওপর হামলা করিয়েছে বলে অভিযোগ করেন তার পরিবারের লোকজন। তারা হামলাকারীদের শনাক্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
আজাদ মিয়ার ভাই আফরোজ রায়হান বলেন, আমার ভাই ফসলরক্ষা বাঁধের কাজে দুর্নীতির প্রতিবাদ করে আসছেন। এতে স্থানীয় প্রভাবশালীমহল তাঁকে বিভিন্নভাবে হুমকিধামকি দিয়ে আসছিল। আমরা আশঙ্কা করছি স্থানীয় এই প্রভাবশালীমহল আমাদের ভাইকে প্রাণে মারার জন্যে ভাড়াটে সন্ত্রাসী দিয়ে এই হামলা চালিয়েছে।
আফরোজ আরো বলেন, আজাদ ভাইর অবস্থা খুব সংকটাপন্ন। ডাক্তার বলেছে যেকোন সময় অবস্থার আরো অবনতি হতে পারে। আমরা হামলাকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
এদিকে হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের নেতারা। মোল্লাপাড়া ইউনিয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন বলেন, আজাদ মিয়ার ওপর যে হামলা হয়েছে তা মেনে নেয়া যায় না। আমরা সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অ্যাড. বজলুল মজিদ চৌধুরী খসরু ও সাধারণ সম্পাদক বিজন সেন রায় এক যৌথ বিবৃতিতে বলেন, আজাদ মিয়া হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের একজন সক্রিয় নেতা। তিনি একজন প্রতিবাদী মানুষ। বিগত বছরে হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধের কাজে অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে তাঁর অবস্থান ছিল। আজাদ মিয়ার উপর হামলার ঘটনার নিন্দা জানাই। অবিলম্বে হামলাকারীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।
এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, হামলার ব্যাপারে লিখত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী