,

Notice :

পাঁচ আসনে হেভিওয়েট প্রার্থীদের কার কত সম্পত্তি


শহীদ নুর আহমেদ ::

৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ অংশ নিতে ইতোমধ্যে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন সুনামগঞ্জের ৫ টি আসনের বিভিন্ন দলের অর্ধশতাধিক প্রার্থী। মনোনয়নপত্রের হলফনামায় প্রার্থীদের সম্পত্তির বিবরণ দেয়া হয়েছে। সম্পত্তির বিবরণ অনুযায়ি ৫টি আসনের হেভিওয়েট প্রার্থীদের সম্পত্তির বিবরণ প্রতিবেদনে তুলে ধরা হলো।
সুনামগঞ্জ-১(জামালগঞ্জ, তাহিরপুর, ধর্মপাশা) আসনে হেভিওয়েট তিন প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য নজির হোসেন, বিকল্পধারা (যুক্তফ্রন্ট) মনোনীত প্রার্থী মো. রফিকুল ইসলাম।
যাদের মধ্যে বর্তমান সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের কৃষিখাতে বাৎসরিক আয় ১২ লক্ষ ৪৮ হাজার টাকা, কৃষি জমির পরিমান ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ৯৩ লক্ষ ৩ হাজার ৪শত ৫৮ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ১ কোটি ৭ লক্ষ ৩৩ হাজার ২শত ২০ টাকা, নগদ টাকার পরিমাণ ৮০লক্ষ ৯১ হাজান ৫শত ৪৪ টাকা, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমান ৪ লক্ষ ৬১ হাজার ৮শত ৩ টাকা, স্বর্ণ নিজ নামে ৪০ তোলা।
অপর প্রার্থী নজির হোসেনের কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ১ লক্ষ ৩২ হাজার ৫শত টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ২৭ লক্ষ ৭ হাজার ৫শত টাকা, নগদ টাকার পরিমান১০ হাজার টাকা, ব্যাংকে জমা ১৩ লাখ ৯ হাজার ৩শত ৪ টাকা ৬২ পয়সা, ব্যবসা ক্ষেত্রে বাৎসরিক আয় ২ লক্ষ ৭০ হাজার ৫শত ৯০ টাকা, ২ লক্ষ টাকা মূল্যের স্বর্ণ রয়েছে তাঁর কাছে।
আরেক প্রার্থী রফিকুল ইসলামের কৃষি খাতে বার্ষিক আয় ৪ লক্ষ টাকা, নগদ টাকা রয়েছে ১৮ লক্ষ টাকা, ব্যাংকে জমা ২ লক্ষ টাকা, স্বর্ণ রয়েছে ৩০ তোলা, অকৃষি জমির পরিমান ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২ লক্ষ টাকা, বাড়ি ভারা থেকে মাসিক আয় ৩ লক্ষ টাকা।
সুনামগঞ্জ-২(দিরাই শাল্লা) আসনে হেভিওয়েট দুই প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. জয়া সেন গুপ্তা ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য মো. নাছির উদ্দিন চৌধুরী। যাদের মধ্যে জয়া সেন গুপ্তার কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ৬ লক্ষ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২২ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা, নগদ টাকা রয়েছে ৫ লক্ষ টাকা, ব্যাংকে জমা আছে ৯১ লক্ষ ৪৫ হাজার ৯শত ৬৯ টাকা ৩০ পয়সা, স্বর্ণ রয়েছে ১০ ভরি।
অপর প্রার্থী নাছির উদ্দিন চৌধুরীর কৃষি খাতে বার্ষিক আয় ১লক্ষ ৫৫ হাজার, ব্যবসা খাতে বার্ষিক আয় ১লক্ষ টাকা, নগদ টাকা রয়েছে ৫৫ হাজার, কৃষি জমির পরিমান ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ১৫ লক্ষ ৫ হাজার টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ২৫ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।
সুনামগঞ্জ-৩(দক্ষিণ সুনামগঞ্জ-জগন্নাথপুর) আসনে তিনি হেভিওয়েট প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এমএ মান্নান, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ মনোনীত প্রার্থী মো. শাহীনূর পাশা চৌধুরী ও গণফোরাম মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম। যাদের মধ্যে এম এ মান্নানের কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ১০ লক্ষ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ১০ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা, নগদ টাকার পরিমান ৩ লক্ষ ৬১ হাজার ৮শত ৬৪টাকা, ব্যাংকে জমাকৃত অর্থ ৫৫ লক্ষ ৩৫ হাজার ৮শত ২ টাকা , বাড়ি ভারা থেকে মাসিক আয় ৩ লক্ষ ৯৬ হাজার ২শত ৮০ টাকা।
অপর প্রার্থী শাহীনুর পাশা চৌধুরীর কৃষি খাতে আয় ৫৯ হাজার ৮শত টাকা, নগদ অর্থের পরিমাণ ১ লক্ষ ৯৬ হাজার ৮শত ৯৪ টাকা, ব্যাংকে রয়েছে ১ হাজার ১শত ৪০ টাকা, কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২ লক্ষ ৪৪ হাজার ১০০ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ১০ লক্ষ ৮৮ হাজার ৬শত ৫০ টাকা ,নিজের নামে ১লক্ষ ৫০ হাজার টাকা মূল্যের স্বর্ণ ও মূল্যবার ধাতু রয়েছে।
আরেক প্রার্থী নজরুল ইসলামের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে জমাকৃত অর্থের পরিমাণ ৪০ লক্ষ টাকা, নগদ অর্থ রয়েছে ৫০ হাজার টাকা।
সুনামগঞ্জ-৪(সুনামগঞ্জ সদর ও বিশ্বম্ভরপুর ) আসনে ৩ হেভিওয়েট প্রার্থী হলেন, বর্তমান সংসদ সদস্য মহাজোট মনোনীত প্রার্থী পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হুইপ মোহাম্মদ ফজলুল হক আছপিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য মো. মতিউর রহমান।
পীর ফজলুর রহমানের নগদ অর্থের পরিমাণ ৪০ লক্ষ ৫৭ হাজার ৫শত ২ টাকা, ব্যাংকে জমা রয়েছে ৩ লক্ষ ৩২ হাজার ৩শত ৮৪ টাকা, স্বর্ণের পরিমান ১০ ভরি।
অপর প্রার্থী মোহাম্মদ ফজলুল হক আছপিয়ার কৃষিখাতে বার্ষিক আয় ৩০ হাজার টাকা, নগদ অর্থের পরিমাণ ৪ লক্ষ ১৯ হাজার, ব্যাংকে জমা রয়েছে ৫০ হাজার টাকা, কৃষি জমির পরিমান ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ৩৬ হাজার টাকা, বাড়ি ভারা থেকে মাসিক আয় ৩ লক্ষ ৯৯ হাজার টাকা।
আরেক প্রার্থী মতিউর রহমানের ব্যাংকে কোন টাকা না থাকলেও নগদ রয়েছে ১২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৫শত টাকা, অকৃষি জমির পরিমান ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২ লক্ষ ৯৮ হাজার। বাড়ি ভারা থেকে মাসিক আয়
সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসনে ৩ হেভিওয়েট প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মহিবুর রহমান মানিক , বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমেদ ও আরেক বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. মিজানুর রহমান।
যাদের মধ্যে মহিবুর রহমান মানিকের ব্যাংকে জমা রয়েছে ৩৫ লক্ষ ৩৩ হাজার ৪শত ৯২ টাকা, নগদ অর্থের পরিমান ৪ লক্ষ ৫০ হাজার, স্বর্ণের পরিমাণ ৫০ তোলা, কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ৫ লক্ষ ৮৪ হাজার ৯শত ৩৭ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ৩২ লক্ষ ৭৬ হাজার ৪শত টাকা। বাড়ি ভাড়া থেকে মাসিক আয় ৪ লক্ষ ৭২ হাজার ৫শত টাকা।
অপর প্রার্থী কলিম উদ্দিন আহমদের কৃষি খাতে বার্ষিক ৩৪ হাজার, ব্যবসা থেকে আয় ১৩ লক্ষ ৮১ হাজার ৫শত ৮০ টাকা, নগদ টাকার পরিমাণ ১ লক্ষ, ব্যাংকে জমা রয়েছে ২ লক্ষ ৯৮ হাজার ২শত ৫০ টাকা, কৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২ লক্ষ ২৩ হাজার ৩শত ২৬ টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জিনকালীম সময়ে আর্থিক মূল্য ২২ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। অপর প্রার্থী মিজানুর রহমানের ব্যবসা থেকে আয় ৩ লক্ষ টাকা, নগদ টাকার পরিমাণ ৮ লক্ষ ৩ হাজার ৯শত ৬৩ টাকা, ব্যাংকে জমা রয়েছে ১২ লক্ষ টাকা ৪৪ হাজার ২শত টাকা, অকৃষি জমির পরিমাণ ও অর্জনকালীন সময়ে আর্থিক মূল্য ১ কোটি ৫৪ লক্ষ ৩৭ হাজার ৮শত ৩ টাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী