,

Notice :
«» ধর্মপাশায় বিদ্যুৎ সাব-স্টেশন নির্মাণকাজ দ্রুততার সাথে এগিয়ে যাচ্ছে «» ৩০ তারিখ সারাদিন নৌকা মার্কায় ভোট দিন : এমএ মান্নান «» মহাজোটের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করুন : রনজিত চৌধুরী «» বিশ্বম্ভরপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের শতাধিক নেতাকর্মীরা স্বেচ্ছাসেবক লীগে যোগদান «» নৌকায় ভোট দিলে দেশে উন্নয়ন হয় : জয়া সেনগুপ্তা «» ছাতকে দুই জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার «» ইতিহাসের তথ্যবিকৃতি কাম্য নয় «» মুক্তিযুদ্ধের চেতনা সমুন্নত রাখার দৃপ্ত শপথে বিজয় দিবস উদযাপিত «» জুবিলী ও সতীশ চন্দ্র স্কুলের কোচিংবাজ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের চিঠি «» সুনামগঞ্জ-৪ আসনকে উন্নয়নে বদলে দেবো : পীর মিসবাহ

শাল্লায় দপ্তরীর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু

শাল্লা প্রতিনিধি ::
শিশু শিক্ষার্থীর উপর যৌন নির্যাতনসহ বিদ্যালয়েল জায়গা আত্মসাতের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত শুরু করেছে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোহাম্মদ ফেরদৌস ও সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা দ্বীন মোহাম্মদ। বৃহস্পতিবার সকালে আনন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসেন তদন্তকারী কর্মকর্তাগণ। সেখানে যৌন নির্যাতনের শিকার ৪র্থ শ্রেণির ওই শিশু শিক্ষার্থী ও শিশুসহ তার পিতা মাতাকে মৌকিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে বিদ্যালয়েল প্রধান শিক্ষক ও নির্যাতিতার পরিবারের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ নেয়া হয়।
শিশুদের উপর যৌন নির্যাতনের বিষয়ে সহকারী কর্মকর্তা দ্বীন মোহাম্মদ বলেন, তদন্তের পর দপ্তরীর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে ।
এব্যাপারে হবিবপুর ইউপির ২নং ওয়ার্ড সদস্য সুব্রত সরকার বলেন, শিশু নির্যাতনের অভিযোগে উপজেলা থেকে তদন্তের একটি টিম এসেছে। আমিও সেখানে উপস্থিত ছিলাম। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাগণ তদন্তে শিশু নির্যাতনের সত্যতা পেয়েছেন। তারা আশ্বাস দিয়ে গেছেন দপ্তরীর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন।
তিনি আরো বলেন দপ্তরী যেখানে স্থায়ী বসতঘর নির্মাণ করেছে সেই জায়গা স্কুলের। কাজেই এই সরকারি জায়গা উদ্ধার করতে হবে। শিশুরা সেখানে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনসহ খেলাধুলার জায়গা পাবে।
এবিষয়ে অভিযোগকারী রথীন্দ্র চন্দ্র দাস বলেন আমি দপ্তরী গোপাল রায়ের উপযুক্ত শাস্তি চাই। অন্যথায় আমি আদালতের স্মরণাপন্ন হবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী