,

Notice :

বিএনপির রাজনীতি : ১০ দিনের মাথায় তিন ইউনিটে ব্যাপক পরিবর্তন


স্টাফ রিপোর্টার ::

১০ দিনের মাথায় বিএনপির তিনটি ইউনিটের কমিটিতে ব্যাপক পরিবর্তন করা হয়েছে। কেন্দ্রিয় কমিটির নিদের্শে গত সোমবার জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল পরিবর্তিত কমিটিগুলো অনুমোদন করেন। সোমবার কমিটি অনুমোদন করলেও বুধবার বিষয়টি প্রকাশ পায়।
নেতাকর্মীরা বলছেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাড. ফজলুল হক আছপিয়া ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুলের বিরোধের কারণেই এই তিনটি ইউনিটে এই পরিবর্তন আনা হয়েছে। পরিবর্তনের কারণে কমিটি গুলোতে আধিপত্য বেড়েছে ফজলুল হক আছপিয়ার।
সুনামগঞ্জ-৪(সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনে অ্যাড. ফজলুল হক আছপিয়া ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুল দু’জনইে মনোনয়ন প্রত্যাশী। এক সময়ে গুরু-শিষ্যর সম্পর্ক থাকলে দলীয় মনোনয়ন ও কমিটি নিয়ে তাদের মধ্যে চরম বিরোধ দেখা দিয়েছে।
সদর উপজেলা কমিটিতে সভাপতি পদে সাবেক চেয়ারম্যান আকবর আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সাবেক চেয়ারম্যান উসমান গনি, সাধারণ সম্পাদক পদে সেলিম উদ্দিন আহমদ, প্রথম যুগ্ম সম্পাদক পদে হারুনুর রশিদ এবং সাংগঠনিক সম্পাদক পদে এবাদুর রহমান শাহিন দায়িত্ব পেয়েছেন। আকবর আলী ও সেলিম উদ্দিন আগের কমিটিতে থাকলেও অন্যরা নতুন করে দ্বায়িত্ব পেযছেন।
পৌর কমিটিতে সভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন অ্যাডভোকেট শেরেনূর আলী, সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রভাষক নওয়াজ উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাবেক পৌর কাউন্সিলর আব্দুল্লাহ আল নোমান, প্রথম যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল গফফার এবং সাংগঠনিক সম্পাদক পদে জাহাঙ্গীর আহমদকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
পৌর কমিটিতে মুর্শেদ আলমকে সরিয়ে জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল নোমানকে দেয়া হয়েছে সাধারণ সম্পাদকের দ্বায়িত্ব। মুর্শেদ আলম জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুলের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত।
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা বিএনিপর সভাপতি পদে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ছবাব মিয়া, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে নূরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক পদে শফিকুল ইসলাম, প্রথম যুগ্ম সম্পাদক পদে মনিরুজ্জামান আবু এবং সাংগঠনিক সম্পাদক পদ পেয়েছেন নজরুল ইসলাম।
বিএনপি সূত্রে জানা গেছে, তিনটি কমিটির ৬টি শীর্ষ পদের মধ্যে ৫টি ছিল ফজলুল হক আছপিয়া ও ১টি ছিল নুরুল ইসলাম নুরুল অনুসারী। কিন্তু ১টি পদ হাত ছাড়া হওয়ার পর এনিয়ে কেন্দ্রে অভিযোগ করেন ফজলুল হক আছপিয়া। পরে কেন্দ্রের নির্দেশে পৌর কমিটির সাধারণ সম্পাদকসহ তিনটি ইউনিট কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সিনিয়র সহসভাপতি, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদগুলোতে পরিবর্তন আনা হয়। নুরুল ইসলাম নুরুলের অনুসারীদের সরিয়ে আছপিয়ার অনুসারীদের পদ দেয়া হয়।
গত ২৭ অক্টোবর সুনামগঞ্জ-৪ আসনভুক্ত ৩টি ইউনিটের কমিটি অনুমোদন করেছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি ওসাধারণ সম্পাদক।
জেলা বিএনপির সভাপতি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন কমিটি অনুমোদনের কথা নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী