,

Notice :

বঙ্গবন্ধু সুনামগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অনুমোদনে উচ্ছ্বসিত জেলাবাসী

স্টাফ রিপোর্টার::
বঙ্গবন্ধু সুনামগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল একনেকে অনুমোদন লাভ করায় উচ্ছ্বসিত সুনামগঞ্জবাসী। প্রকল্পটি অনুমোদন লাভ ও আগামী শিক্ষা বছর থেকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরুর খবরে আনন্দিত সাধারণ মানুষ। তারা জেলার সবচেয়ে বড় প্রকল্পটির অনুমোদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থ-পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। জেলাবাসী মনে করছেন দেশের পিছিয়ে থাকা জনগোষ্ঠী এখন দোড়গোড়ায় থেকে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা পাবে। তাছাড়া হাওরভাটির মেধাবী শিক্ষার্থীরা নিজ এলাকায় থেকে মেডিকেলে পড়ালেখার সুযোগ পাবে। তাছাড়া নার্সিং বিষয়েও সর্বোচ্চ ডিগ্রি অর্জন করার সুযোগ পাবে মেধাবীরা।
গতকাল রোববার একনেক সভায় প্রকল্পটি বঙ্গবন্ধুর নামে পাশ হওয়ায় যারপরনাই খুশি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের লোকজন। তারা সংশ্লিষ্টদের অভিন্দন জানিয়েছেন। বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন ভাবে আনন্দ প্রকাশ করছেন। তারা সরকার প্রধান শেখ হাসিনা ও অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. নূরুল ইসলাম বলেন, এই মুহুর্তে আমাদের সবচেয়ে আনন্দের খবর এটি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবহেলিত হাওরবাসীকে স্বাস্থ্যসেবা তাদের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দেওয়ায় আজীবন তারা তাকে মনে রাখবেন। মেডিকেল শিক্ষার ক্ষেত্রে আমাদের স্বপ্নপূরণের সুযোগ করে দিয়েছেন তিনি। আগামী শিক্ষা বছর থেকেই কার্যক্রম শুরু হয়ে যাবে। আমরা উচ্ছ্বসিত।
জেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি ওবায়দুর রহমান কুবাদ বলেন, আমরা জননেত্রী শেখ হাসিনা ও আমাদের প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্নপূরণ করার সুযোগ দিয়েছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমরা এখন ঘরে থেকে সর্বোচ্চ স্বাস্থ্যসেবা পাব। এতে গরিব কৃষকরা উপকৃত হবেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এডভোকেট শফিকুল ইসলাম বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন। প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম. এনামুল কবির ইমন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুহাতে উজার করে দিচ্ছেন হাওরবাসীকে। হাওরের কৃষকদের সর্বোচ্চ বরাদ্দ, অনুদানের সঙ্গে রাস্তাঘাট, সেতু, বিদ্যুৎ স্টেশনসহ নানা মাইলফক উন্নয়ন করেছেন তিনি। অবশেষে আমাদের বহুল কাঙ্খিত মেডিকেল কলেজটি আমাদের জাতিরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে অনুমোদন দেওয়ায় আমরা চির কৃতজ্ঞ। আমাদের সুযোগ্য প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান মহোদয়কেও আমাদের অভিনন্দন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী