,

Notice :

পুরাতন বাসস্ট্যান্ড : স্ট্যান্ড রেখে সড়কে লেগুনা-সিএনজি


স্টাফ রিপোর্টার::

সুনামগঞ্জ পুরাতন বাসস্টেশনে মূল সড়কে এখন গাড়ি পার্কিং করছে লেগুনা ও কার লাইটেস চালকরা। স্টেশনের নির্দিষ্ট জায়গা থেকে সড়ে এসে তারা মূল সড়কে গাড়ি রাখায় প্রায়ই যানজটের সৃষ্টি হয়। তাছাড়া সম্প্রতি সিএনজি স্ট্যান্ডও করে নিয়েছে তারা। এদিকে পুরাতন শিল্পকলা একাডেমি মোড়ের সড়কেও গত বছর থেকে অনুমতি ছাড়াই স্ট্যান্ড করে নিয়েছে সিএনজি চালকরা। লেগুনা ও হিউম্যান হলার মালিক ও শ্রমিক সমিতির নেতারা প্রশাসনের অনুমতি না নিয়েই শহরের জনবহুল এলাকায় স্ট্যান্ড করায় যাত্রীদের সমস্যা হচ্ছে। প্রতিদিনই স্কুল ও কলেজগামী শিক্ষার্থীদের এই স্টেশনে দুর্ভোগে পড়তে হয়।
দেখা গেছে প্রতিদিনই সুনামগঞ্জ পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে সড়ক ও জনপথের সড়কে গাড়ি পার্কিং করে লেগুনা রাখা হয়। সড়কের পূর্বপার্শে সমিতির কার্যালয় ঘেষা অনেক ফাঁকা স্থান থাকলেও গত বছর থেকে তারা সেই স্থান ব্যবহার না করে সড়কেই গাড়ি রাখে। খোলা স্থানে গাড়ি না রেখে সরকারি সড়কে গাড়ি রাখে সারি সারি করে। এতে পথচারী ও অফিসে যাতায়াতকারীদের সময় অপচয় হয়। তাদের দেখাদেখি নূরানী রেস্টুরেন্টের সামনেও সিএনজি স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হয়েছে। এর পাশেই নূরানী আবাসিক হোটেল থেকে রাজধানী রেস্টুরেন্টের সামনে সড়ক ও জনপথের মূল সড়কেই কার ও মাইক্রোবাস পার্কিং করে রাখা হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে। শহরের জনবহুল স্থানে পরিবহন স্টেশন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সুধীজন।
প্রতিদিনই পুরাতন বাসস্টেশনে অফিস চলাকালীন সময়ে জ্যাম লেগে থাকতে দেখা যায়। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে চাকুরি করেন এমন স্থানীয় কয়েকজন জানিয়েছেন জনবহুল একটি স্থানে স্টেশন থাকা এবং স্টেশনে গাড়ি না রেখে মূল সড়কে রাখার কারণেই যানজট লেগে থাকে। অভিযোগ রয়েছে যানজট চলাকালে পথচারীরা প্রতিবাদ করলে চালকদের আক্রমণের শিকার হন সাধারণ যাত্রীরা। তাছাড়া প্রশাসনের সামনে এভাবে সড়ক দখল করে গাড়ি পার্কিং করা হলেও প্রশাসনও কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেনা বলে সুধীজনদের অভিযোগ। মালিক পক্ষও চালকদের এভাবে সড়ক দখল করে গাড়ি পার্কিং করে রাখায় কোন নিষেধ দিচ্ছেনা। যার ফলে যে যেভাবে পারে এভাবেই পুরাতন বাসস্টেশনে গাড়ি পার্কিং করে রাখে।
এদিকে গত বছর ধরে শহরের পুরান শিল্পকলা মোড় ও পুরাতন কোর্টের পশ্চিমের অংশ থানার দেয়ালঘেষে সিএনজি স্ট্যান্ড করা হয়েছে। জনবহুল এই স্থানটিতে স্টেশন করায় যাত্রীদের ভোগান্তিসহ স্কুল কলেজে যাতায়াতকারী ছাত্রীরা ঈভ টিজিংয়ের শিকারও হচ্ছেন। প্রতিদিনই চালকরা স্কুল কলেজে যাতায়াতকারী ছাত্রীরা ওই স্থানে যৌন হয়রানির শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে একাধিকবার অপ্রীতিকর ঘটনাও ঘটেছে।
সুনামগঞ্জ সরকারি মহিলা কলেজে অধ্যয়ন রত এক ছাত্রী বলেন, প্রতিদিনই পুরাতন শিল্পকলা একাডেমির সামনের মোড়ে চালকরা ছাত্রীদের দেখে খিস্তিখেউড় করে। শোনতে খারাপ লাগে। এদের নিয়ন্ত্রণ করা উচিত। প্রতিদিনই এই কলেজে ও হাইস্কুলে আসা ছাত্রীরা ইভটিজিং এর শিকার হচ্ছে।
সরকারি কলেজের ছাত্র আরেফিন বলেন, পুরাতন বাসস্ট্যান্ড ও শিল্পকলা একাডেমির মোড়ে যানজট লেগে থাকে নিয়মিত। সড়কেই প্রকাশ্যে গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়। মূল শহরে এই স্ট্যান্ড মানানসই নয়। স্টেশন বাইরে নিয়ে যাওয়ার দাবি জানান তিনি।
সুনামগঞ্জের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মো. শামছুল ইসলাম বলেন, পুরাতন বাসস্টেশন সরিয়ে অন্যত্র নেওয়ার জন্য অনেক বৈঠক হয়েছে। কিন্তু স্থান পাওয়া যাচ্ছেনা। তবে সড়কে গাড়ি পার্কিং করার কোন নিয়ম নেই। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।
সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র নাদের বখত বলেন, সড়কে কোনভাবেই যানবাহন পার্কিং কাম্য নয়। এ বিষয়ে সবাইকেই সচেতন হতে হবে। তবে প্রশাসনকে এ বিষয়টি দেখা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী