,

Notice :

সরকারি কর্মকর্তাদের সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে : বিভাগীয় কমিশনার


হাসান বশির ::

সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী।
তিনি রোববার দুপুরে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই আহ্বান জানান।
মোহাম্মদ মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, দুর্নীতিমুক্ত ও ভোগান্তিহীন সেবা নিশ্চিত করতে হবে। সেবা গ্রহীতাদের সঙ্গে আচরণে অমায়িক হতে
হবে। সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে প্রত্যেকে নিজ নিজ অর্পিত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে একাতাবদ্ধ হতে হবে।
তিনি বলেন, স্থানীয় জনসাধারণের জন্য সরকারি কর্মকর্তাদের দরজা খোলা রাখতে হবে। সরকারি কর্মকর্তাদের দরজা বন্ধ থাকলে দালাল ও মধ্যস্বত্বভোগী শ্রেণি সুযোগ নেয়। উন্নয়ন নিশ্চিত করতে দুর্নীতিকে টেনে ধরতে হবে। স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়তে হলে সবাইকে সততার সঙ্গেই কাজ করতে হবে।
সিলেট বিভাগীয় কমিশনার মেজবাহ উদ্দিন বলেন, দেশের অগ্রগতি ও উন্নয়নের জন্যে মানুষ খুব দ্রুত বদলে যাচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে পরিকল্পনা ও অগ্রাধিকার কার্যক্রম চলছে। সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে কোন কাজটি আগে করতে হবে, কোন কাজটি পরে করলে চলবে – এমন কার্যক্রম চলছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ফজরের নামাজ শেষে কার্যক্রম শুরু করে দীর্ঘ রাত পর্যন্ত কাজ করেন। তার সরকারের প্রচেষ্টায় দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও সক্ষমতা বেড়েছে। দেশে বর্তমানে শিক্ষার হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২ ভাগ। গৃহহীনদের বাসস্থান, বিদ্যুৎসহ সকল ক্ষেত্রে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি কার্যক্রমে সবাইকে সম্পৃক্ত হতে হবে।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, সরকারি দায়িত্ব পালনে ফাঁকি দিলে এর জবাব দিতে হবে। সরকারি দপ্তরে কোনো অনিয়ম-দুর্নীতি সহ্য করা হবে না। কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে হবে।
সভায় বক্তাগণ হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ স্থায়ীকরণ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় হাওরের ফসল রক্ষাবাঁধের দু’পাশে হিজল-করচ গাছ লাগানো, সুনামগঞ্জের আব্দুজ জহুর সেতু হতে পর্যটন কেন্দ্র টাঙ্গুয়ার হাওরের পূর্বপাড় পর্যন্ত দুই লেন সড়ক নির্মাণ, কৃষকের কল্যাণে সবজি সুরক্ষায় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় হিমাগার নির্মাণ, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, বিশ্বম্ভরপুর হতে নেয়ামতপুর পর্যন্ত হাওর রক্ষা বাঁধ স্থায়ীভাবে সুরক্ষার মাধ্যমে জামালগঞ্জ বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নের দাবি করেন। এছাড়া বিশ্বম্ভরপুর সদর ইউনিয়ন নামে নতুন ইউনিয়ন গঠনের দাবিসহ বোরো মৌসুমে সুনামগঞ্জের লালপুর থেকে বিশ্বম্ভরপুর সদর পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের উদ্যোগে বাঁধ নির্মাণের মাধ্যমে নদী নালার ডুবরার পানি আটকে রেখে ফসল সুরক্ষার দাবি জানিয়েছেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সমীর বিশ্বাস।
বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, ভাইস চেয়ারম্যান সুলেমান তালুকদার, পলাশ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ূম মাস্টার, ফতেপুর ইউপি চেয়ারম্যান রনজিত চৌধুরী রাজন, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আপ্তাব উদ্দিন মাস্টার, উপজেলা আ.লীগ সভাপতি বেনজির আহমদ মানিক, কৃষি কর্মকর্তা দিপক কুমার দাস, প্রভাষক শেখ আজরফ, প্রেসক্লাব সভাপতি স্বপন কুমার বর্মণ, হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন কমিটি বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক হাসান বশির, শিক্ষক ছাইদুর রহমান, কলেজ শিক্ষার্থী মুহসিন আহমদ, নজরুল ইসলাম।
কালাম পাঠ করেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মডেল কেয়ারটেকার ফজলুল হক। এর আগে বিভাগীয় কমিশনার তালেরতল গ্রামের একটি বাড়ি একটি খামার গ্রাম উন্নয়ন সমিতিসহ বিভিন্ন বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন। এছাড়া বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে গাছ রোপণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী