,

Notice :

আ.লীগে বিদ্রোহী প্রার্থীর জায়গা নেই : ওবায়দুল কাদের

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে দলের সাধারণ স¤পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনে দলের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করলে, আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ছাড়া বিদ্রোহী প্রার্থী হলে দলে জায়গা হবে না।
উত্তরবঙ্গ সফরে যাওয়ার পথে শনিবার বেলা ১১টার দিকে টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা রেল স্টেশনে এক সংক্ষিপ্ত পথসভায় তিনি এসব কথা বলেন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি-জামায়াত আবারও ২০১৪ সালের মতো আগুন সন্ত্রাস ও ষড়যন্ত্রের পাঁয়তারা করছে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের এ অপচেষ্টা কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে।
তিনি আরও বলেন, জনগণ বিএনপির দুঃশাসন আর দেখতে চায় না। দেশে যে উন্নয়নের জোয়ার বইছে, তাতে জনগণ আবারও নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনবে।
পরে দুপুর আড়াইটার দিকে নাটোর রেল স্টেশন এলাকায় এক পথসভায় বক্তব্য রাখেন ওবায়দুল কাদের। এ সময় তিনি বলেন, প্রত্যেকের আমলনামা জমা আছে। আমলনামা দেখে, জনপ্রিয়তা যাচাই করে মনোনয়ন দেওয়া হবে। যার পক্ষে জনগণ আছে, জনগণ যাকে ভালোবাসে তাকে বঞ্চিত করা হবে না।
ওবায়দুল কাদের দাবি করেন, প্রত্যেকের আমলনামা আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার টেবিলে জমা আছে। ছয় মাস পর পর এই আমলনামা সংগ্রহ করা হয়। আমলনামা পর্যালোচনা করে এ পর্যন্ত জনমত যার পক্ষে আছে আগামী নির্বাচনে তাকেই মনোনয়ন দেওয়া হবে।
এ আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব সময় ইতিবাচক রাজনীতি করেন। জনগণের কল্যাণে তারা নিবেদিতপ্রাণ। জনগণ শেখ হাসিনাকে ভালোবাসে, শেখ হাসিনাও জনগণকে ভালোবাসেন।
কারও পক্ষে স্লোগান দিয়ে মনোনয়ন পাওয়া যাবে না জানিয়ে তিনি বলেন, স্লোগান হবে শুধু বঙ্গবন্ধু আর শেখ হাসিনার নামে।
বিএনপি নেতাদের কাছে প্রশ্ন রেখে ওবায়দুল কাদের বলেন, এমন কোনও কাজ কি বিএনপি করেছে, যার জন্য তারা জনগণের কাছে ভোট চাইতে পারে? অথচ আসন্ন নির্বাচনে যাওয়ার জন্য সরকারের কাছে তারা পাঁচটি শর্ত দিয়েছে। সরকার যাতে শর্তগুলো মেনে নেয় সেজন্য তারা বিদেশিদের কাছে ধরনা দিচ্ছে। তিনি বলেন, বিদেশি নয়, দাবি পূরণ করতে পারে একমাত্র জনগণ।
সরকারকে উৎখাত করতে বিএনপি বারবারই আন্দোলনের হুমকি দেয় দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ১০ বছরে ২০টি ঈদ হয়েছে। কখনও কোটায় ভর করে, কখনও ছাত্র আন্দোলনে ভর করে বিএনপি আন্দোলন করতে চেয়েছিল। ১০ বছরে তারা যখন আন্দোলন করতে পারেনি আগামী দুই মাসেও পারবে না।
খালেদা জিয়া জেলে গেলে আন্দোলনে দেশ বঙ্গোপসাগর হয়ে যাবে বলা হলেও নদীর ঢেউও দেখা যায়নি দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, মরা গাঙে জোয়ার আসে না। বিএনপিও আর আন্দোলন করতে পারবে না। আন্দোলনের কোনও হুমকি না দিয়ে আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য তিনি
বিএনপির প্রতি আহ্বান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী