,

Notice :
«» জেলা প্রশাসকের সাথে রিপোর্টার্স ইউনিটি নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ «» সরকারি প্রতিষ্ঠানে সেবার মান আরো বৃদ্ধি করতে হবে : জেলা প্রশাসক «» জগন্নাথপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে ভুল রিপোর্ট প্রদানের অভিযোগ «» কালনী নদী থেকে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির লাশ উদ্ধার «» স্বেচ্ছাসেবক লীগের আনন্দ মিছিল «» সরকারি কলেজের ৭৫ বছর পূর্তি উদযাপনে জরুরি সভা আজ «» দুর্গাপূজা উপলক্ষে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে «» নতুন এমপিওভুক্তির আবেদন ৯৪৯৮, চলছে যাচাই-বাছাই «» দ্বিমুখী ক্ষতি থেকে অভিভাবকদের রক্ষা করুন «» টাঙ্গুয়ার হাওর : নৌ মালিক-চালকদের কাছে জিম্মি পর্যটকরা

জেলা ছাত্রদল : প্রথম কর্মসূচিতেই বিভক্তি

স্টাফ রিপোর্টার ::
প্রথম কেন্দ্রীয় কর্মসূচি পালন করতে গিয়েই বিভক্ত হয়ে গেছে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটি। বুধবার দুপুরে বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইসহাক সরকারের মুক্তির দাবিতে অনুষ্ঠিত কর্মসূচি বিভক্ত হয়ে পালন করেন জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।
জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. রায়হান উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক শাহ ফরহাদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বাধীন অংশ শহরের পুরাতন বাসস্টেশন এলাকা থেকে মিছিল করে আলফাত স্কয়ারে যাওয়ার পথে কামারখালি ব্রিজের কাছে পুলিশি বাঁধার মুখে পড়ে। এ সময় বাধাস্থলেই সমাবেশে মিলিত হন নেতৃবৃন্দ।
জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো. রায়হান উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সম্পাদক শাহ মো. ফরহাদ-এর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব। এসময় জেলা ছাত্রদল, উপজেলা ছাত্রদল, পৌর ছাত্রদল, কলেজ ছাত্রদলসহ সর্বস্তরের নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির সোহাগের নেতৃত্বাধীন অংশ শহরের কাজিরপয়েন্ট এলাকা থেকে মিছিল বের করে। মিছিলটি উকিলপাড়ায় এসে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। তাৎক্ষণিক সেখানেই প্রতিবাদ সমাবেশে মিলিত হন ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ। সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ।
সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির সোহাগের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাদিকুর রহমান স্বপন, মুমিত ইসলাম, জেলা ছাত্রদল নেতা মছিউর রহমান জুনায়েদ, আজাদুর রহমান আজাদ, আসলাম হোসেন মিল্টন, আলম, সিহাব, জাবেদ, পারভেজ, আলমগীর, রিগান, হুমায়ুন কবির, হুরুল আমিন, রেজাউল করিম, মানিক, সুজন, ফয়ছল, সায়েম, নাফিজ, শাহীন, মাহবুব, দিলোয়ার, হাসান, রাহী, অনিক, সাগর প্রমুখ।
রায়হান উদ্দিন, শাহ ফরহাদ ও হাবিবুর রহমান হাবিব রাজনীতিতে জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরুলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। অন্যদিকে আব্দুল কাদির সোহাগ বিএনপি নেতা নাদির আহমদ, যুবদল সভাপতি আবুল মনসুর শওকত, আব্দুল্লাহ আল নোমানের অনুসারী। মাসখানেক আগে জেলা ছাত্রদলের কমিটি অনুমোদন করে কেন্দ্র।
জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, কেন্দ্র থেকে কর্মসূচি ঘোষণার পর আমাদের পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদককে ঐক্যবদ্ধভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালনের জন্য যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তারা কর্মসূচিতে আমাদের সঙ্গে আসেনি।
জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির সোহাগ বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে আমরা পুরাতন বাসস্টেশন যেতে চেয়েছিলাম। পরে পুলিশ আমাদের মিছিল উকিলপাড়ায় আটকে দেয়। ফলে মিছিল নিয়ে আর পুরাতন বাসস্টেশন যেতে পারিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী