মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:১৬ অপরাহ্ন

Notice :

এক ‘বাবার চিঠি’ পেয়ে পর্নো সাইট বন্ধের উদ্যোগ

সুনামকণ্ঠ ডেস্ক ::
ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব ফয়জুর রহমান চৌধুরী বরাবর পর্নো ওয়েবসাইটগুলো বন্ধের আহ্বান জানিয়ে চিঠি দিয়েছেন একজন বাবা। ওই বাবা চিঠিতে অসহায়ত্ব প্রকাশ করে লিখেছেন, এসব সাইট বন্ধ করা না হলে সমাজের কোমলমতি শিশু-কিশোররা ধ্বংস হয়ে যাবে। সমাজ পতিত হবে এক ভয়ঙ্কর আসক্তিতে। এখনই পর্নো সাইটগুলো বন্ধ করা না গেলে তা আগামী দিনে ভয়ঙ্কর পরিণাম ডেকে আনবে। তিনি চিঠিতে আরও উল্লেখ করেছেন, সমাজের অনেক সন্তান এরইমধ্যে এসবে আসক্ত হয়ে গেছে। মূলত চিঠির মূলভাব এমনই। আর ওই চিঠির সূত্র ধরেই পর্নো সাইটগুলো বন্ধের উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে সরকার। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।
সংশ্লিষ্টরা জানান, মূলত এই চিঠির সূত্র ধরে সরকার পর্নো ওয়েবসাইট বন্ধের উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে। যদিও মন্ত্রণালয় বলছে, এ বিষয়ে সরকারের পরিকল্পনা আগে থেকেই ছিল। তবে একজন সচেতন বাবার চিঠি পাওয়ার পরেই এই উদ্যোগে গতি এসেছে।
হালে পর্নোগ্রাফির ওয়েবসাইট নিয়ে বেশ আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে। এসব বন্ধের পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে ঝড় উঠেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও। সরকারের নীতিনির্ধারক মহলেও বিষয়টি গুরুত্ব পাচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
ডাক ও টেলিযোগোযোগ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব এম. রায়হান আখতারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ফাইল রেডি (চিঠি তৈরি) হচ্ছে। একটি চিঠি নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি এবং আরেকটি চিঠি ডট-কে (ডিপার্টমেন্ট অব টেলিকম) পাঠানো হবে।
তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে (পর্নো ওয়েবসাইট) কী করা যেতে পারে, এ বিষয়ে বিটিআরসি থেকে নীতিনির্ধারণী এবং ডট থেকে কারিগরি বিষয়ক পরামর্শ চাওয়া হবে। ওইসব পরামর্শ পাওয়ার পরেই কাজটি করার বিষয়ে চূড়ান্তভাবে অগ্রসর হওয়া যাবে।
তিনি আরও বলেন, পর্নো ওয়েবসাইট বন্ধের বিষয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে বসবেন। তার আগেই ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগকে বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থার পরামর্শ নিয়ে করণীয় ঠিক করতে হবে।
পর্নো ওয়েবসাইট কারিগরিভাবে শতভাগ বন্ধ করা সম্ভব নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, ৯০ ভাগ বন্ধ করা সম্ভব। শতভাগ বন্ধের চেষ্টা করাও উচিত নয়। তাহলে চেষ্টা ব্যর্থও হতে পারে।
প্রসঙ্গত, ২০১০ সালের শুরুর দিকে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের সামাজিক মূল্যবোধের পরিপন্থী হিসেবে চিহ্নিত করে ৮৪টি পর্নো ওয়েবসাইট বন্ধ করে দেওয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয় পুলিশ সদর দফতর। চিঠিতে ওই ওয়েবসাইটগুলোকে অশ্লীল ও বিকৃত উল্লেখ করে বিটিআরসির মাধ্যমে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়ার আবেদন জানানো হয়। সাইটগুলোর তালিকা দিয়ে চিঠিতে বলা হয়, ওই সাইটগুলোতে কিছুদিন ধরে দেশের মানুষের গোপনে ধারণ করা যৌনতার ছবি ও ভিডিও প্রদর্শন করা হচ্ছে।
অন্যদিকে, এর আগে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এগুলো বন্ধ করার সিদ্ধান্ত হয়। এ ধরনের আরও ওয়েবসাইট খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নেওয়ার লক্ষ্যে একটি কমিটি গঠনের জন্যও বিটিআরসিকে নির্দেশনা দেওয়া হয়।
জানা যায়, বিটিআরসি উদ্যোগ নিলে দুই সপ্তাহের মতো বন্ধ ছিল পর্নো সাইটগুলো। পরে ২০১১ সালের জানুয়ারি মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে আবারও সক্রিয় হতে থাকে পর্নো সাইটগুলো। তখন বিটিআরসি জানায়, কমিশনের একার পক্ষে সাইটগুলো বন্ধ করা সম্ভব নয়।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার যেন ওই অবস্থা না হয়, সে কারণে আগের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে পর্নো সাইট বন্ধের উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ভিডিও গ্যালারী

ভিডিও গ্যালারী